ac4e908521a6cc4ed847288868e279ff_1

জেনে নিন ফ্রিজ ব্যবহারের কিছু জরুরি নিয়ম

 

সংসারের দরকারি সরঞ্জামগুলোর মাঝে সম্ভবত আজকাল ফ্রিজটাই সব চাইতে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ফ্রিজে রাখা হয় নানা ধরনের রান্না করা খাবার, সবজি ,মাছমাংস আরো কত কি।

এই কারনে অল্প কিছু দিন পর পরই ফ্রিজটা নোংরা হয়ে ওঠে। অন্যদিকে ফ্রিজ অপরিষ্কার থাকলে খাবার যেমন জলদি নষ্ট হয়ে যায়, তেমনই সেই খাবার থেকে আমাদের শরীরে নানা ধরনের রোগ বাসা বাঁধতে পারে।

আর নোংরা থাকার কারণে আপনার অতি শখের ফ্রিজটিও দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়। তাই ফ্রিজের দরকার বিশেষ যত্ন।

ac4e908521a6cc4ed847288868e279ff_1
এখনকার ফ্রিজে যে ভাবে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করা হয়, তাতে স্বচ্ছন্দে দিন সাতেক খাবার রাখতে পারেন। কিন্তু প্রতিদিনকার খাবার রাখার সময় আমরা না জেনেই ছোটখাট কিছু ভুল করে থাকি। যা থেকে হতে পারে নানা সমস্যা। জেনে নেয়া যাক কিছু সমস্যার কথা:

১.ব্যস্ততার কারণে প্রতিদিন বাজারে যাওয়া সম্ভব হয় না, তাই অনেকটা মাছ-মাংস একবারে কিনে ডিপ ফ্রিজে চালান করে দেওয়া হয়। রান্না করার আগে সেই মাছ বা মাংসের প্যাকেট বের করে সেখান থেকেই ওই দিনেরটা সরিয়ে নিয়ে আবার বাকিটা তুলে রাখা হয়। একটা প্যাকেট বা কন্টেনারে সব মাছ-মাংস রাখলে এ ক্ষেত্রে একটি সমস্যা হতে পারে।

২.জমাট বরফ না গলা পর্যন্ত মাছ বা মাংস আলাদা করা যায় না। এইভাবে অনেকক্ষণ বাইরে রাখার পরে যে অংশ কাঁচা অবস্থায় আবার তুলে দেওয়া হল, তাতে ব্যাকটেরিয়া বাসা বাধতে পারে। তাপমাত্রার হেরফেরের জন্য এমনটা হয়। তাই এক বারে বেশ কিছু দিনের জন্য রাখতে হলে আলাদা আলাদা কন্টেনার বা প্যাকেট করে রাখতে হবে। যাতে নির্দিষ্ট কোনো দিনের জন্য যেটুকু দরকার, সেটাই বাইরে বের করা হয়।

৩.রান্না করা খাবারের ক্ষেত্রেও একই ব্যাপার। বার বার খাবার বের করে গরম করে আবার ফ্রিজে যেন ঢোকাতে না হয়। বরং আলাদা পাত্রে খাবার রাখবেন।

৪.অনেকের ধারণা গরম অবস্থায় খাবার ফ্রিজে রাখলে সেটি পচে যায়। তা নয়। খাবার ঠাণ্ডা করে তোলা হয়, যাতে কম্প্রেসারের ওপর চাপ কম পড়ে। বরং অল্প গরম অবস্থাতেই খাবার ফ্রিজে রাখবেন।

৫.বার বার ফ্রিজ খুলবেন আর বন্ধ করবেন না।

৬.তবে শাকসবজি বা ফল ফ্রিজে বেশ কিছু দিন রেখে খেলে তার থেকে খানিকটা ভিটামিন-মিনারেল কমে যায়।

৭.মাছ-মাংস ডিপ ফ্রিজে রাখতে হবে। তবে ৩-৪ দিনের বেশি রাখা উচিত নয়।

৮.ফ্রিজের খাবার সব সময় ঢাকা দিয়ে রাখবেন। না হয় বিভিন্ন খাবারের গন্ধ মিলেমিশে একাকার হয়ে যাবে।

৯.কাঁচা সবজি প্যাকেটে মুড়ে না রাখলে তার থেকে আর্দ্রতা চলে যায়।

১০.অনেকের ধারণা, ঠান্ডা পানি খেলে মোটা হয়ে যায়। কিন্তু ঠাণ্ডা পানিতে কোনো ক্যালোরি নেই। তাই মোটা হওয়ার ভয় নেই।

Tags: ,

There are no comments yet

Why not be the first

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Anti-Spam Quiz: