tipsbg_691249779-644x320

বিবাহিত পুরুষরা যে কাজগুলো কখনোই করবেন না

বিডিকষ্ট ডেস্ক

 

বিয়ে প্রতিটি নারী ও পুরুষের জীবনের খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বিয়ে মানেই দুটি মানুষ সারাজীবন একসাথে থাকার সিদ্ধান্ত। দাম্পত্য জীবনে নারী ও পুরুষ যদি নিজেদের ছোট ছোট কিছু সমস্যা, অভ্যাস সব কিছু পরিত্যাগ করে ভালো থাকার চেষ্টা করে তাহলে অবশ্যই ভালো থাকা যায়। তাই ভালো থাকতে ও বিবাহিত জীবন সুখের করে তুলতে স্বামী স্ত্রী উভয়েরই সৎ থাকা উচিত দু’জনের কাছে। কিন্তু তারপরও অনেকেই হয়তো পারেন না একে অপরের কাছে সৎ থাকতে তা হোক পুরুষ কিংবা নারী। বিয়ের পর অধিকাংশ নারীরাই সংসার জীবনে ব্যস্ত হয়ে যায় আর পুরুষেরাও ব্যস্ত থাকেন সব মিলিয়ে। তাই হয়তো একে অপরকে সময়ও দিতে পারেন খুব কম। কিন্তু সময় কম দিয়েও যদি দুজনের মাঝে সম্পর্ক সুস্থ ও সুন্দর থাকে তাহলে তো কোন সমস্যা নেই। কিন্তু সমস্যা হয় তখনই যখন স্বামীরা অনেক সময় কিছু ভুল কাজ করে ফেলেন। স্ত্রীরাও যে ভুল করেন না তা নয়। কিন্তু স্বামীদের এমন কিছু ভুল যা সব স্ত্রীর জন্য মেনে নেয়াটা একটু কঠিন হয়ে যায়।

১। ভুলেও বিয়ের পর অন্য কোনও মেয়ের সাথে ফ্লার্ট করবেন না। ভালোবাসার ব্যাপারটায় আপনাকে কিন্তু স্ত্রীর কাছে খাঁটি ও একনিষ্ঠ থাকতে হবে। আপনি একবার ভাবুন আপনার স্ত্রী যদি অন্য কোন পুরুষের সাথে ফ্লার্ট করে কেমন লাগবে আপনার?

২। অতীত নিয়ে কখনো খোঁচা-খুঁচি করবেন না। বিশেষ করে বিয়ের পর স্বামী ও স্ত্রীর কারোই উচিত না অতীত নিয়ে কথা বলা। অতীত থাকতেই পারে। তাই বলে এটা কোন কথা বলার বিষয় না। অতীত ফেলে স্ত্রীর বর্তমান দেখুন। সম্পর্ক ভালো থাকবে।

৩। মায়ের সাথে কখনোই বউয়ের তুলনা করা উচিত না। কারণ মা ও বউ কখনোই এক রকম হতে পারে না। আপনাকে বুঝতে হবে আপনার মায়ের বয়স ও স্ত্রীর বয়স। আপানার মা যে কাজ গুলোতে অভিজ্ঞ আপনার স্ত্রীর মধ্যে সেই অভিজ্ঞতা গুলো নাও থাকতে পারে কারণ দুজনের মধ্যে আছে বয়সের অনেক ব্যবধান। যেমন মায়ের মাছ রান্না খুব ভালো কিন্তু বউয়েরটা ভালো নয়। বাউয়েরটা ভালো নাই হতে পারে, রান্না করতে করতেই শিখে যাবে ভালো করে কীভাবে রান্না করতে হয়। তাই বলে মায়ের সাথে বউয়ের তুলনা করা কি ঠিক ?

৪। অফিসের নানা কাজে পুরুষেরা ব্যস্ত থাকেন, বস অথবা কলিকের সাথে ঝামেলা এগুলো তো নিত্য দিনের ব্যাপার। তাই বলে যে বাহিরের রাগ বাড়িতে এসে বউয়ের ওপর ঝাড়বেন তা অবশ্যই কোন ব্যক্তিত্ববান পুরুষের কাজ নয়। এতে করে বাড়ির শান্তি নষ্ট হয়। সম্পর্কও খারাপ হয়। মনে রাখা উচিত যে স্ত্রীরও সারাদিন বাড়িতে কত কাজ করতে হয়, এর জন্য তো সে আপনাকে অভিযোগ করেন না।

Tags: ,

There are no comments yet

Why not be the first

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Anti-Spam Quiz: